রবিবার, ১৬ই জুন ২০২৪, ২রা আষাঢ় ১৪৩১


ফিলিস্তিনকে তিন দেশের স্বীকৃতি ইসরায়েলের জন্য ধাক্কা


প্রকাশিত:
২২ মে ২০২৪ ১৯:৫৪

আপডেট:
১৬ জুন ২০২৪ ০৬:০৫

ছবি- সংগৃহীত

ফিলিস্তিনকে স্বাধীন দেশের স্বীকৃতি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইউরোপের তিন দেশ স্পেন, নরওয়ে ও আয়ারল্যান্ড। আগামী ২৮ মে থেকে তাদের এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। বুধবার নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী জোনাস গার, স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সান্তেজ এবং আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সিমন হ্যারিস ফিলিস্তিনকে স্বাধীন দেশের স্বীকৃতি দেওয়ার ঘোষণা দেন। এ বিষয়টিকে ইসরায়েলের জন্য ধাক্কা হিসেবে দেখা হচ্ছে। এ নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে দখলদার ইসরায়েল। তারা এ তিন দেশের রাষ্ট্রদূতদের তাৎক্ষণিকভাবে তলব করেছে।

বুধবার সংবাদ সম্মেলনে নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী ইউনাস গার স্তুরে বলেন, যুদ্ধে হাজার হাজার মানুষ যখন হতাহত হচ্ছে, তখন আমাদের অবশ্যই এমন একটি বিষয়কে টিকিয়ে রাখতে হবে, যা ইসরায়েলি ও ফিলিস্তিনিদের জন্য নিরাপদ ভূমি নিশ্চিত করতে পারবে। তা হলো দুই রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা। যেন তারা একে অপরের সঙ্গে শান্তিতে থাকতে পারে।

নরওয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ঠ মিত্র দেশ। সাম্প্রতিক দশকগুলোতে বিভিন্ন সময়ে নরডিক দেশটিকে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠায় মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিতে দেখা গেছে। এ ঘোষণার আগে জাতিসংঘের ১৯৩টি সদস্য দেশের মধ্যে ১৪৩টির মতো দেশ ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিয়েছে।

অন্যদিকে বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সাইমন হ্যারিস বলেছেন, আজ আয়ার‌ল্যান্ড, নরওয়ে ও স্পেন ঘোষণা করবে যে আমরা ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দিচ্ছি। আজকের ঘোষণার আগ পর্যন্ত আমি অন্য বেশ কয়েকজন নেতা ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে এই গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিয়ে আরও কয়েকটি দেশ আমাদের সঙ্গে যোগ দেবে বলে বিশ্বাস আমার। ইসরায়েল, ফিলিস্তিন ও তাদের জনগণের শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য দ্বি-রাষ্ট্রিক সমাধানই একমাত্র বিশ্বাসযোগ্য পথ বলেন তিনি। ইসরায়েলের পূর্ণ স্বীকৃতি এবং এর ‘প্রতিবেশীদের সঙ্গে নিরাপদ ও শান্তিতে থাকার’ অধিকার নিয়ে আয়ারল্যান্ড দ্ব্যর্থহীন। ফিলিস্তিনকে আয়ারল্যান্ডের স্বীকৃতি ২৮ মে থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যকর হবে বলে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইকেল মার্টিন জানিয়েছেন।

ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দেওয়ার ক্ষেত্রে ইউরোপীয় দেশগুলোকে ভিন্ন ভিন্ন অবস্থান নিতে দেখা গেছে। সুইডেনের মতো কয়েকটি ইউরোপীয় দেশ এক দশক আগেই ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিয়েছে। আবার ফ্রান্সের এমন কোনো পরিকল্পনা নেই।

ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশ গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ফিলিস্তিনকে স্বাধীন দেশের স্বীকৃতি দেওয়ার কথা বলে আসছিল। তাদের মতে, মধ্যপ্রাচ্যে স্থিতিশীলতা ফেরানোর জন্য দ্বিরাষ্ট্র নীতি কার্যকর করতে হবে। অর্থাৎ দখলদার ইসরায়েলের পাশে আলাদা স্বাধীন ফিলিস্তিন থাকবে।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশ স্লোভেনিয়া ও মাল্টা ইঙ্গিত দিয়েছে, তারা ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দেওয়ার পরিকল্পনা করছে। দেশ দুটির কর্তৃপক্ষ মনে করে, অঞ্চলটিতে দীর্ঘস্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠায় দ্বিরাষ্ট্রভিত্তিক সমাধান জরুরি। খবর নিউইয়র্ক টাইমসের।

 



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:




রিসোর্সফুল পল্টন সিটি (১১ তলা) ৫১-৫১/এ, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
মোবাইল: ০১৭১১-৯৫০৫৬২, ০১৯১২-১৬৩৮২২
ইমেইল : [email protected]; [email protected]
সম্পাদক : লিটন চৌধুরী

রংধনু মিডিয়া লিমিটেড এর একটি প্রতিষ্ঠান।

Developed with by
Top