রবিবার, ১৬ই জুন ২০২৪, ১লা আষাঢ় ১৪৩১


ভারতীয় প্রতিষ্ঠানকে বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান সালমান এফ রহমানের


প্রকাশিত:
২৫ মে ২০২৪ ১৭:২৫

আপডেট:
১৬ জুন ২০২৪ ০৪:২৭

ছবি সংগৃহিত

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেছেন, সান ফার্মাসিউটিক্যালসের বিনিয়োগে দেশের ওষুধ শিল্পে নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। দেশের স্বাস্থ্য খাতে নতুনত্ব নিয়ে আসা ও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে অবদানের জন্য সান ফার্মা প্রশংসার দাবিদার।

বর্তমানে ওষুধ শিল্প বিভিন্ন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হচ্ছে। প্রযুক্তিগত বিভিন্ন পরিবর্তনের কারণে এই খাতে আমাদের আরও অনেক কাজ করতে হবে। এ ছাড়া ভারতের সঙ্গে আরও অনেক খাতেই আমাদের কাজের সুযোগ রয়েছে। ভারতীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে বাংলাদেশে আরও বেশি বিনিয়োগ করা উচিত।

শনিবার (২৫ মে) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে মেঘনা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইকোনমিক জোনে ভারতীয় বিনিয়োগে সান ফার্মাসিউটিক্যালসের কারখানা উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ভারতীয় রাষ্ট্রদূত প্রণয় কুমার ভার্মা বলেন, করোনাকালে টিকা ও অক্সিজেন দিয়ে বাংলাদেশের পাশে ছিল ভারত। আগামীতেও ওষুধসহ বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগের মাধ্যমে বাংলাদেশের পাশে থাকবে ভারত।

এ সময় বাংলাদেশের ওষুধ শিল্পের উন্নয়নে ভারতের ফার্মাকোপিয়া ব্যবহারেও বাংলাদেশকে অনুরোধ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সান ফার্মা বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম স্পেশালিটি জেনেরিক কোম্পানি। সান ফার্মা স্পেশালিটি, জেনেরিক ও কনজ্যুমার হেলথকেয়ারের জন্য সমাদৃত। এটি ভারতের বৃহত্তম ওষুধ উৎপাদনকারী ও যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় জেনেরিক কোম্পানি হিসেবে প্রসিদ্ধ। বিশ্বব্যাপী দ্রুত বর্ধনশীল কোম্পানিগুলোর মধ্যে সান ফার্মা অন্যতম।

বিশ্বব্যাপী সান ফার্মার স্পেশালিটি পোর্টফোলিওতে রয়েছে ডার্মাটোলজি, অপথালমোলজি ও অনকো ডার্মাটোলজির বিভিন্ন ধরনের উদ্ভাবনী পণ্য, যা কোম্পানি সেলসের ১৬ শতাংশ দখল করেছে।

কোম্পানিটি ভার্টিক্যালি ইন্টিগ্রেটেড অপারেশন্সের মাধ্যমে প্রস্তুতকৃত উচ্চমান সম্পন্ন ওষুধগুলো বিশ্বের ১০০টিরও বেশি দেশে চিকিৎসক ও ভোক্তাদের আস্থা অর্জন করেছে। ৬টি মহাদেশে এই কোম্পানির উৎপাদন প্ল্যান্ট রয়েছে। প্রায় ৫০টি দেশে জনশক্তির জন্য সান ফার্মা অত্যন্ত গর্বিত।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরও বক্তব্য দেন মেঘনা গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রি ও মেঘনা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইকোনমিক জোনের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল (বেজার) নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ ইউসুফ হারুন, বাংলাদেশ ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোহাম্মদ ইউসুফ, ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেডের চেয়ারম্যান ড. আব্দুল মুক্তাদির, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি অনুষদের ডিন ড.ফিরোজ আহমেদ প্রমুখ।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:




রিসোর্সফুল পল্টন সিটি (১১ তলা) ৫১-৫১/এ, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
মোবাইল: ০১৭১১-৯৫০৫৬২, ০১৯১২-১৬৩৮২২
ইমেইল : [email protected]; [email protected]
সম্পাদক : লিটন চৌধুরী

রংধনু মিডিয়া লিমিটেড এর একটি প্রতিষ্ঠান।

Developed with by
Top