রবিবার, ২৬শে মে ২০২৪, ১২ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১


কাঁদছেন কৃষক: ধানের সঙ্গে এ কেমন শত্রুতা, কীটনাশক দিয়ে ঝলসিয়ে দিতে হলো!


প্রকাশিত:
২২ এপ্রিল ২০২৪ ১৩:৩৫

আপডেট:
২৬ মে ২০২৪ ০৬:৪৮

ছবি- সংগৃহীত

কাঁদছেন নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার ভাবিচা ইউনিয়নের চন্ডিপুর দীঘিরপাড়ের কৃষক সাইদুর রহমান। কাঁদার কারণ, তার কষ্টে রোপণ করা আড়াই বিঘা জমির বোরো ধান কে বা কাহারা তাকে সর্বশান্ত করতে কীটনাশক প্রয়োগ করে ঝলসিয়ে দিয়েছে।

এ বিষয়ে সাইদুর রহমান বিচার চেয়ে ধরনাও দিচ্ছেন বিভিন্নজনের কাছে। কিন্তু কোথাও বিচার না পেয়ে অবশেষে থানায় মৌখিকভাবে জানিয়েছেন। কারও বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ করতে পারছেন না, কারণ কীটনাশক প্রয়োগে কাউকে সে দেখিনি।

ভুক্তভোগী সাইদুর রহমানের ছেলে সোহেল বলেন, ‘আমরা খুব গরীব। কিছু নিজের ও বর্গা হিসাবে মোট ৩ বিঘা জমিতে বোরো চাষ করেছি পেটের ভাতের আশায়। আর কয়েকদিন পর ধান ঘরে তুলতে পারতাম। কিন্তু আমাদের সেই আশায় পানি ঢেলে দিলো। আমাদের কারো সাথে তেমন কোন শত্রুতা নেই। দু-এক প্রতিবেশীর সঙ্গে সামান্য মনোমালিন্য রয়েছে। হয়তো তারাই রাতের অন্ধকারে এ জঘন্য কাজ করতে পারে।’

সোহেল কান্না বিজড়িত কন্ঠে আরো বলেন, ‘গত আমন মৌসুমেও কাটা ধান বাড়িতে উঠানোর আগের রাতে ওই অমানুষরা ধানের পালাতে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে। দেশের সম্পদ নষ্ট করেছে। চুরি করলেও তো কারো না কারো কাজে লাগে, কিন্তু পুড়িয়ে ফেললে কি কাজে লাগে। এই ভাবেই আমাদের সর্বশান্ত করতে বারবার ধান পুড়িয়ে ফেলছে। আমরা এর সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

এ বিষয়ে নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মাইদুল ইসলাম বলেন, ‘এ বিষয়ে ভুক্তভোগী কৃষক থানায় এখন পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:




রিসোর্সফুল পল্টন সিটি (১১ তলা) ৫১-৫১/এ, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
মোবাইল: ০১৭১১-৯৫০৫৬২, ০১৯১২-১৬৩৮২২
ইমেইল : [email protected]; [email protected]
সম্পাদক : লিটন চৌধুরী

রংধনু মিডিয়া লিমিটেড এর একটি প্রতিষ্ঠান।

Developed with by
Top