রবিবার, ১৬ই জুন ২০২৪, ২রা আষাঢ় ১৪৩১


সাকিব-মুস্তাফিজকে ছাড়া আইপিএলের ফাইনাল


প্রকাশিত:
২৬ মে ২০২৪ ১৪:৫৮

আপডেট:
১৬ জুন ২০২৪ ০৬:২৫

ছবি- সংগৃহীত

কলকাতার তিন নাকি হায়দরাবাদের দুই? দীর্ঘ দুই মাস ধরে চলা ১০ দলের আইপিএলের শিরোপা কার হাতে উঠবে তা জানতে অপেক্ষা আর মাত্র কয়েক ঘণ্টার। আজ (রবিবার) চেন্নাইয়ের এমএ চিদাম্বারাম স্টেডিয়ামে সপ্তদশ আসরের শিরোপার লড়াইয়ে মাঠে নামছে এই দুই দল।

আইপিএল ইতিহাসে কলকাতা নাইট রাইডার্স (৩) ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদ (২) মিলে মোট ৫ বার ফাইনাল খেলেছে। প্রতিবারই এই দুই দলে ছিলেন একজন করে বাংলাদেশি। এবারই প্রথম কলকাতা ও হায়দরাবাদ ফাইনাল খেলতে নামছে কোনো বাংলাদেশি ক্রিকেটার ছাড়া।

এর আগে ২০১২ ও ২০১৪ সালে আইপিএলের শিরোপা উঁচিয়ে ধরেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। দুবারই দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন সাকিব আল হাসান। যদিও ২০১২ থেকে ২০১৪ সালে বেশি সফল ছিলেন সাকিব। ২০১২ সালে ৮ ম্যাচে ১২ উইকেট শিকারের পাশাপাশি ব্যাট হাতে ৯১ রান করেন টাইগার অলরাউন্ডার। অন্যদিকে ২০১৪ সালে উইকেট একটি কম পেলেও ব্যাট হাতে ২২৭ রান করেন সাকিব।

টানা সাত মৌসুম কলকাতায় কাটিয়ে ২০১৮ সালে সাকিব পাড়ি জমান সানরাইজার্স হায়দরাবাদে। সেখানে প্রথম মৌসুমেই দলকে ফাইনালে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। যদিও চেন্নাইয়ের বাধা টপকে শিরোপা জেতা হয়নি সাকিবদের। পরবর্তীতে আরও একবার আইপিএলের ফাইনাল খেলেন সাকিব। এবার পুরোনো দল কলকাতার হয়ে। ২০২১ এর সেই ফাইনালেও বাধা হয়ে দাঁড়ায় ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস। এরপরে সাকিবকে আর আইপিএলে দেখা যায়নি।

সাকিব ব্যতীত আইপিএলে সফল বাংলাদেশি আরেক ক্রিকেটার পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। ২০১৬ সালে প্রথমবারের মতো আইপিএল খেলতে গিয়েই শিরোপাজয়ী দলের সদস্য হয়ে যান তিনি। শুধু তাই নয় সেবার ১৬ ম্যাচে ১৭ উইকেট নিয়ে প্রথম ও একমাত্র বিদেশি হিসেবে আইপিএলের সেরা উদীয়মাণ খেলোয়াড়ের পুরষ্কারটিও নিজের ঝুলিতে নেন। যদিও এরপর আর আইপিএলের ফাইনাল খেলা হয়নি মুস্তাফিজের।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:




রিসোর্সফুল পল্টন সিটি (১১ তলা) ৫১-৫১/এ, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
মোবাইল: ০১৭১১-৯৫০৫৬২, ০১৯১২-১৬৩৮২২
ইমেইল : [email protected]; [email protected]
সম্পাদক : লিটন চৌধুরী

রংধনু মিডিয়া লিমিটেড এর একটি প্রতিষ্ঠান।

Developed with by
Top